Header Ads Widget

TMC পার্টি আরো একটা মিটিং/mamata banerjee news/tmc news/TMC news today


         TMC পার্টি আরো একটা মিটিং হয়ে গেলো কাটাবেনিয়া নামে একটি গ্রামে, সেই ছট্রো গ্রামে অসঙ্গো লোক এসে ছিলো, আর সেখানে 7.50 থেকে মিটিং চালু করা হয়ে ছিলো । এই মিটিংয়ে সবাই সবরোকমের কথা বলেছে কিন্তু তার মধ্যো এজন ছিলো পুরু কামানের গলার মতো কথা বলে গিয়েছে। আজ আমি সেই লোকটার কথা তোমাদের সঙ্গে সেয়ার করবো।

সেই লোকটি বলেন দাঁতের নিচের পাটি, ব্যেং পাটি, তাসা পাটি আর গাজন পাটি আর বিজেপি দলটি গাজন পাটিতে পরিনতো হয়েছে, আন্যয়নের বালাই নেই খালি নানা ধরনের ডাইলোগে ভরা, টিএমসি পাটি  যখন আমাদের করোনার সময় বাড়ি মা, বোন, ও বাবা, বাই খেতে পায়না তখন আমাদের পাশে কে এসে দাঁড়িয়েছে, সেই এক টা হায়াই চটি পরা 60 বাছরের মেয়ে পরনে সাদা কাপর এই মেয়েটি আমাদের পাশে এসে দাঁড়িয়ে ছিলো করনার সময় আমাদের দুবেলা দুমুঠো খাবার তুলে দিয়ে ছিলো আমাদের বাঁচার জন্য যা যা প্রোয় জন তাই তাই আমাদের কে দিয়ে ছিলো এই টিএমসি।

সেই 60 বছরের মহিলাটি  আমাদের জন্য 65 টি প্রোকল্প করে গিয়েছে, আজ এই প্রোকল্প গুলির জন্য মানুষ অনেক অপকার পাচ্ছে, এখন একটা মানুষ যখন বয়স হয়ে যায়, তখন তার কেউ দেখেনা তাকে সবাই অবোহেলা করে কিন্তু কেউ না দেখও দেখে কে আমাদের দিদি যে মমতা দিদি আমাদের বেকার ভাতার নামে একটি প্রোকল্প আছে সেই প্রোকল্পে আমাদের বয়স হয়েগেল  আমরা প্রতি মাসে 1000 টাকা করে পাবে, আর তার পর ইস্কুলে ইস্কুলে সাইকেল, মানুষ মারা গেলে তার টাকা এই ভাবে নানান কাজে আমাদের পাসে দাঁড়িয়েছে আমা মমতা দিদি তাই সবাই আমাদের ভোটে জিতিয়ো দাও আমরা কাথা দিলা আমরা তোমাদের অনেক দিয়ে ছি, তোমরা সুধু ভোটটা  আমাদের কে দাউ, আমরা ভোটের পরে তোমাদের বারি বারি সবার টিউকল বসিয়ে দেবো এই বলে আমি আমি কথা শেস করলাম. পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর আস্তে চলেছে আমাদের কুল্পু বিধান সভাতে আসা করি সবাই সেই দিন উপস্থিত থাকবে।

ভোটের আগে আমরা নানান যায়গাতে পরিশ্রোম করি যেমন দিয়াল লেখা দিয়াল লিখতে লিখতে আনেক সময় আমারা সকালে বেরহই আর সেই রাতে ফিরি, আর তার পরের দিন আবার বের হয়ে যাই, প্রোতিটি গাছে উঠে উঠে পতাকা লাগানো বা আমাদের টিমের মেম্বার বারানো আরো নানান কাজ করতে হয়।



আমরা দেখি কোন মানুষ খেতে পাচ্ছেনা সেই সকল মানুকে আমরা বিনাপয়সাতে চাল, ডাল, রেসম দিয়ে তাদের মুখে আবার হাসি ফুটিয়ে তুলেছিটিএমসি পার্টি আরো একটা মিটিং হয়ে গেলো কাটাবেনিয়া নামে একটি গ্রামে, সেই ছট্রো গ্রামে অসঙ্গো লোক এসে ছিলো, আর সেখানে 7.50 থেকে মিটিং চালু করা হয়ে ছিলো । এই মিটিংয়ে সবাই সবরোকমের কথা বলেছে কিন্তু তার মধ্যো এজন ছিলো পুরু কামানের গলার মতো কথা বলে গিয়েছে। আজ আমি সেই লোকটার কথা তোমাদের সঙ্গে সেয়ার করবো।

সেই লোকটি বলেন দাঁতের নিচের পাটি, ব্যেং পাটি, তাসা পাটি আর গাজন পাটি আর ওই দলটি গাজন পাটিতে পরিনতো হয়েছে, আন্যয়নের বালাই নেই খালি নানা ধরনের ডাইলোগে ভরা, টিএমসি পাটি  যখন আমাদের করোনার সময় বাড়ি মা, বোন, ও বাবা, বাই খেতে পায়না তখন আমাদের পাশে কে এসে দাঁড়িয়েছে, সেই এক টা হায়াই চটি পরা 60 বাছরের মেয়ে পরনে সাদা কাপর এই মেয়েটি আমাদের পাশে এসে দাঁড়িয়ে ছিলো করনার সময় আমাদের দুবেলা দুমুঠো খাবার তুলে দিয়ে ছিলো আমাদের বাঁচার জন্য যা যা প্রোয় জন তাই তাই আমাদের কে দিয়ে ছিলো এই টিএমসি।

সেই 60 বছরের মহিলাটি  আমাদের জন্য 65 টি প্রোকল্প করে গিয়েছে, আজ এই প্রোকল্প গুলির জন্য মানুষ অনেক অপকার পাচ্ছে, এখন একটা মানুষ যখন বয়স হয়ে যায়, তখন তার কেউ দেখেনা তাকে সবাই অবোহেলা করে কিন্তু কেউ না দেখও দেখে কে আমাদের দিদি যে মমতা দিদি আমাদের বেকার ভাতার নামে একটি প্রোকল্প আছে সেই প্রোকল্পে আমাদের বয়স হয়েগেল  আমরা প্রতি মাসে 1000 টাকা করে পাবে, আর তার পর ইস্কুলে ইস্কুলে সাইকেল, মানুষ মারা গেলে তার টাকা এই ভাবে নানান কাজে আমাদের পাসে দাঁড়িয়েছে আমা মমতা দিদি তাই সবাই আমাদের ভোটে জিতিয়ো দাও আমরা কাথা দিলা আমরা তোমাদের অনেক দিয়ে ছি, তোমরা সুধু ভোটটা  আমাদের কে দাউ, আমরা ভোটের পরে তোমাদের বারি বারি সবার টিউকল বসিয়ে দেবো এই বলে আমি আমি কথা শেস করলাম. পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর আস্তে চলেছে আমাদের কুল্পু বিধান সভাতে আসা করি সবাই সেই দিন উপস্থিত থাকবে।

ভোটের আগে আমরা নানান যায়গাতে পরিশ্রোম করি যেমন দিয়াল লেখা দিয়াল লিখতে লিখতে আনেক সময় আমারা সকালে বেরহই আর সেই রাতে ফিরি, আর তার পরের দিন আবার বের হয়ে যাই, প্রোতিটি গাছে উঠে উঠে পতাকা লাগানো বা আমাদের টিমের মেম্বার বারানো আরো নানান কাজ করতে হয়।

আমরা দেখি কোন মানুষ খেতে পাচ্ছেনা সেই সকল মানুকে আমরা বিনাপয়সাতে চাল, ডাল, রেসম দিয়ে তাদের মুখে আবার হাসি ফুটিয়ে তুলেছি।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর কোনো তুলোনা করা যায়না তিনি আগে যেমন মানুষের পাশে আছে ঠিক এখোন আমাদের পাশে আছে তাই আমাদের মুখ্যমন্ত্রীর পশে থাকা প্রোয় জন বলে আমরা মনে করি।

Post a Comment

0 Comments