Header Ads Widget

গিনিপিগ /reasons to get a guinea pig/ গিনিপিক পুষে লাভবান

     


      এদের মধ্যে একটি ছেলের নাম পিকু সেই ছেলেটি তাক লাগিয়ে দিল গিনিপিক পুষে, সকল মানুষকে দেখিয়ে দিলো যে গিনিপিগ মানুষের  লাইফ দাঁড়করিয়ে দিতে পারে,  সেই ছেলেটি প্রথমে দুটি গিনিপিগ এনেছিল সেই দুটি গিনিপিক  থেকে এখন তার কাছে 200 গিনিপিক, সেই ছেলেটি গিনিপিক প্রতিদিন নিজের খাবারের ভাগ থেকে তাকে খাওয়াতো,  গিনিপিক প্রতিদিন  ঘাস জাতীয় জিনিস খেতে খুব ভালো বাসে,  এই ছেলেটি ক্লাস থ্রিতে পড়ে ক্লাস থ্রিতে পড়ে সে যদি আজ মানুষকে তাক লাগিয়ে দিতে পারে তাহলে আমরা পারব না কেন।  কারন চেষ্টা করলে মানুষ সবকিছু করতে পারে এই বাচ্চা ছেলেটি অনেক পরিশ্রম করে এই গিনিপিগ গুলো এসেছিল আজ তার কাছে 200 থেকে 300 টাকায় গিনিপিগ আছে এই 300 গিনিপিগের দাম কিন্তু কম নয় অনেক বেশি এই গিনিপিক বিজনেস করে কিন্তু একদিন এই ছেলেটি একটি ভালো জায়গায় দাঁড়াতে পারবে এই ছেলেটির বাড়িতে প্রথম রাজি হয়নি গিনিপিগ আনার জন্য কিন্তু এই ছেলেটির জেদে পড়ে এই গিনিপিগ গুলি বাড়িতে এনেছিল আজ এই ছেলেটি গিনিপিক গুলো বাড়িতে এনেছিল বলেই কিন্তু আজ 300 গিনিপিগের বাচ্চা তৈরি করতে পেরেছে এখন ওই ছেলেটির দেখে পাড়ায় অনেকে গিনিপিগ পোষার জন্য তার কাছ থেকে কিছু পরামর্শ নিচ্ছে। 


এই ছেলেটির কাছ থেকে পরামর্শ নিচ্ছেন অনেক বড় বড় মানুষরা কিভাবে গিনিপিগ পালন করলে গিনিপিগের কোন রোগ জীবাণু ধরবেনা কি খাওয়াতে হবে কখন খাওয়াতে হবে সবকিছু এই ছেলেটির কাছ থেকে এখন জেনে নিচ্ছে পাড়ার সকল মানুষ কারণ সকলে কিন্তু ওই গিনিপিক বিজনেস করতে চাইছে এই গিনিপিগ বিজনেস করে অনেকে সফল হয়েছে এবং গিনিপিক বিজনেস করে নিজের সংসার চালিয়েছেন সেই টাকায় পড়াশোনার খরচ ও চালিয়েছেন তাহলে সবাই তো গিনিপিক বিজনেস করবে এবারে প্রথমে একজন শুরু করলে আর তার পাড়া আর শেখা শেষ থাকে না সবাই বলে আমি গিনিপিগ বিজনেস করবো সেই বাচ্চা ছেলেটির কাছ থেকে ক্লাস থ্রিতে পড়ে,  সেই ছেলেটির কাছ থেকে বড় বড় মানুষ কিন্তু ওই বিজনেস শিখেছে এবং সেখান থেকে শিখে বাড়ি এসে বিজনেস করে অনেক লাভবান হয়েছে অনেকে তাই সবাই আরো গিনিপিক বিজনেস করার জন্য যে যার নিজের চাহিদা বাড়ানোর জন্য ঘর বানাচ্ছে। 

এই ছেলেটি বাড়িতে মাছ চাষ করেছে এই মাস থেকে মাসে কুড়ি থেকে ত্রিশ হাজার টাকা আয় করা যায় বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ দেশি শিং মাছ মাগুর মাছ কৈ মাছ এইসকল মাছ চাষ করলে কুড়ি 30 কেন 30 থেকে 40 হাজার টাকা আয় করা যাবে। 

এই ছেলেটি ক্লাস থ্রিতে  পরে যদি এত টাকা ইনকাম করতে পারে তাহলে এখনকার যুগে মানুষ কিন্তু অনেক বেকার হয়ে পড়ে আছে,  কিন্তু তারা কোন কাজ পাচ্ছে না কিন্তু এই ছেলেটি নিজের বুদ্ধিতে নিজের চেষ্টাতেই কাজ খুঁজে পেয়েছে সেই সকল মানুষকে বলি যারা এখনো পর্যন্ত কাজ খুঁজে পাচ্ছেন না কাজের জন্য হতাশ হয়ে যাচ্ছেন কাজ পাবো কি ঠিক নেই তাদের কাছে একান্ত অনুরোধ তারা যেন এই গিনিপিগ পুষে তাদের জীবিকা নির্ভর করুক আর তার সাথে সাথে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ করুন বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ করে প্রচুর মুনাফা অর্জন করতে পারবে। 

এখন মানুষের লকডাউন এর জন্য মানুষ কিন্তু নিজেদের কাজ হারিয়েছে বাড়িতে ঠিকমত সংসার চলছে না, তাদের বলছি তারা যদি এই বায়োফ্লক পদ্ধতিতে বাড়িতে বিজনেস শুরু করে প্রথমে শুরু করতে 5000 টাকা লাগবে এই 5 হাজার টাকা থেকে আপনি 50 হাজার পর্যন্ত লাভ করতে পারেন এই বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষে অবশ্যই হেল্প লাগলে অবশ্যই কন্ট্যাক্ট করবেন আমি আমার কন্টাক নাম্বার দিয়ে দেবো বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ করে দিসি ইজ শিং মাগুর  প্রচুর মুনাফা অর্জন করা যায়।


Post a Comment

0 Comments